May 24, 2024 5:04 pm
Home Finance শেয়ারবাজারে লেনদেনে খরা

শেয়ারবাজারে লেনদেনে খরা

by fstcap

শেয়ারবাজারে তারল্য প্রবাহ কমছেই। লেনদেনে খরা চলছে। গত এক সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ২ হাজার ১৭৫ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। আগের সপ্তাহ থেকে ৪২২ কোটি টাকা কম। আর শতকরা হিসাবে লেনদেন কমেছে ১৬ দশমিক ২৬ শতাংশ। এ ছাড়াও কমেছে বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ারের দাম। এতে মূল্যসূচক কমেছে ১৪ পয়েন্ট এবং বাজার মূলধন কমেছে ৪ হাজার কোটি টাকা। বিশ্লেষকরা বলছেন, নির্বাচনসহ নানা ইস্যুতে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে অস্থিরতা রয়েছে। ফলে তারা আর নতুন করে বিনিয়োগ করছে না। 

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৪০৩টি লেনদেনের জন্য প্রস্তুত ছিল। এরমধ্যে দাম বেড়েছে ৫০টি কোম্পানির শেয়ারের, কমেছে ১০৫টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২১৩টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। সপ্তাহের শুরুতে ডিএসইর ব্রডসূচক ছিল ৬ হাজার ২৭১ পয়েন্ট। সপ্তাহ শেষে তা ১৪ পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ২৫৭ পয়েন্টে নেমে এসেছে। গত সপ্তাহে পাঁচ দিনে ডিএসইতে ২ হাজার ১৭৫ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। প্রতিদিন গড়ে ৪৩৫ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। 

আগের সপ্তাহে পাঁচ দিনে ২ হাজার ৫৯৭ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছিল। প্রতিদিন গড়ে ৫১৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছিল। এ হিসাবে গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ৪২২ কোটি টাকা। প্রতিদিন গড়ে লেনদেন কমেছে ৮৪ কোটি টাকা। শতকরা হিসাবে যা ১৬ দশমিক ২৬ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে ডিএসইর বাজার মূলধন ৪ হাজার কোটি টাকা কমে ৭ লাখ ৭৫ হাজার কোটি টাকায় নেমে এসেছে। কোনো যৌক্তিক কারণ ছাড়াই নির্দিষ্ট কিছু কোম্পানির দাম লাগামহীনভাবে বাড়ছে। এর সঙ্গে একটি কারসাজি চক্র জড়িত। অন্যদিকে বহুজাতিক কোম্পানিসহ বাজারের শক্ত মৌল ভিত্তির কোম্পানির শেয়ারের দাম নিচে রয়েছে। 

সপ্তাহজুড়ে শীর্ষ দশ কোম্পানির ৫৪৬ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা ডিএসইর মোট লেনদেনের ২৫ শতাংশ। একক কোম্পানি হিসাবে গত সপ্তাহে লেনদেনের শীর্ষে ছিল ফুয়াং ফুড। আলোচ্য সময়ে এ কোম্পানির লেনদেন ৭০ কোটি ৭৯ লাখ টাকা। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা খান ব্রাদার্স পিপি ওভেনের লেনদেন ৬৬ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। তৃতীয় অবস্থানে এমারেল্ড ওয়েলের লেনদেন ৬৪ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। এ ছাড়াও খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিংয়ের লেনদেন ৫৪ কোটি ৮৫ লাখ, জেমীনি সিফুড ৫৩ কোটি ৪৫ লাখ, বিডি থাই অ্যালুমিনিয়াম ৫২ কোটি ১০ লাখ, দেশবন্ধু পলিমার ৪৮ কোটি ৪১ লাখ, ইয়াকিন পলিমার ৪৮ কোটি, প্যাসেফিক ডেনিম ৪৪ কোটি ৯ লাখ এবং সেন্ট্রাল ফার্মার ৪৩ কোটি ৩ লাখ  টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

source: Jugantor.com

You may also like