July 18, 2024 6:03 am
Home Finance কনফিডেন্স সিমেন্টে নিরীক্ষকের মতামত-অপরিশোধিত লভ্যাংশের অর্থ সিএমএসএফে পাঠায়নি

কনফিডেন্স সিমেন্টে নিরীক্ষকের মতামত-অপরিশোধিত লভ্যাংশের অর্থ সিএমএসএফে পাঠায়নি

by fstcap

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) প্রজ্ঞাপন অনুসারে তিন বছর বা তার বেশি সময় ধরে অপরিশোধিত বা অদাবীকৃত লভ্যাংশ থাকলে সেটি পুঁজিবাজার স্থিতিশীলতা তহবিলে (সিএমএসএফ) পাঠানোর বিধান রয়েছে। তবে সিমেন্ট খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানি কনফিডেন্স সিমেন্ট পিএলসি অপরিশোধিত লভ্যাংশ এ তহবিলে পাঠায়নি বলে জানিয়েছেন কোম্পানিটির নিরীক্ষক। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ সমাপ্ত ২০২২-২৩ হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে নিরীক্ষক তার মতামতে উল্লেখ করেছেন, গত ৩০ জুন শেষে কনফিডেন্স সিমেন্টের অপরিশোধিত লভ্যাংশের পরিমাণ ছিল ৯ কোটি ৫৩ লাখ ৬১ হাজার ৪২২ টাকা। এর মধ্যে ৮ কোটি ১৩ লাখ ২৩ হাজার ৮০৯ টাকার অপরিশোধিত লভ্যাংশ এখনো সিএমএসএফে স্থানান্তর করেনি কোম্পানিটি।

অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি ২০২৩-২৪ হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) কনফিডেন্স সিমেন্ট পিএলসির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ২৭ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই প্রান্তিকে যা ছিল ১ টাকা ৬০ পয়সা (পুনর্মূল্যায়িত)। পুনর্মূল্যায়ন ছাড়া সমন্বিত ইপিএস ছিল ১ টাকা ৬৮ পয়সা। গত ৩০ সেপ্টেম্বর শেষে শেয়ারপ্রতি সমন্বিত নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৭২ টাকা ১৭ পয়সায়।

গত ১৮ নভেম্বর সর্বশেষ সমাপ্ত ২০২২-২৩ হিসাব বছরের জন্য ৫ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ ঘোষণা করেছিল কনফিডেন্স সিমেন্ট। আলোচ্য হিসাব বছরে কোম্পানিটির নিট মুনাফা বেড়েছে ২ দশমিক ৪৪ গুণ। আলোচ্য হিসাব বছরে কোম্পানিটির নিট মুনাফা হয়েছে ২৭ কোটি ১৯ লাখ টাকা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ১১ কোটি ১৬ লাখ টাকা। 

আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, সমাপ্ত ২০২৩ হিসাব বছরে কনফিডেন্স সিমেন্টের সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৩১ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ১ টাকা ২৫ পয়সা (পুনর্মূল্যায়িত)। গত ৩০ জুন শেষে কনফিডেন্স সিমেন্টের সমন্বিত এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৬৯ টাকা ৮৯ পয়সায়, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ৭১ টাকা ৭৪ পয়সা (পুনর্মূল্যায়িত)। এদিকে ঘোষিত লভ্যাংশ ও অন্যান্য এজেন্ডায় বিনিয়োগকারীদের অনুমোদন নিতে ৩০ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় ডিজিটাল প্লাটফর্মে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আহ্বান করা হয়েছে। 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০২২ হিসাব বছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য মোট ১০ শতাংশ লভ্যাংশের সুপারিশ করেছে কনফিডেন্স সিমেন্টের পরিচালনা পর্ষদ। এর মধ্যে ৫ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ। আলোচ্য হিসাব বছরে কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৪৩ পয়সা (পুনর্মূল্যায়ন ছাড়া), আগের হিসাব বছরে যা ছিল ১৫ টাকা ৮৫ পয়সা (পুনর্মূল্যায়িত)। 

গত বছরের ৩০ জুন শেষে সমন্বিত এনএভিপিএস দাঁড়ায় ৭২ টাকা ২৬ পয়সায় (পুনর্মূল্যায়ন ছাড়া), আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ৭৩ টাকা ৮ পয়সা (পুনর্মূল্যায়িত)। 

৩০ জুন সমাপ্ত ২০২০-২১ সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ২৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে কনফিডেন্স সিমেন্ট। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১৫ টাকা ৮৬ পয়সা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ৬ টাকা ৩৭ পয়সা।

১৯৯৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কনফিডেন্স সিমেন্টের অনুমোদিত মূলধন ১০০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ৮২ কোটি ১৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা। রিজার্ভে রয়েছে ৪১৬ কোটি ১৬ লাখ টাকা। মোট শেয়ার ৮ কোটি ২১ লাখ ৪৬ হাজার ৪৬৮। এর মধ্যে ৩০ দশমিক ৩৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে। এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৩৫ দশমিক ৫০ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে বাকি ৩৪ দশমিক ১৬ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) কনফিডেন্স সিমেন্টের শেয়ারদর গত এক বছরে ৮৯ থেকে ৯৫ টাকার মধ্যে ওঠানামা করেছে।

[CONFIDCEM CONFIDENCE CEMENT unpaid money CMF profit]

 

Source: bonikbarta.net

You may also like